Wellcome to National Portal
মেনু নির্বাচন করুন
Main Comtent Skiped

মাসিক রাজস্ব সম্মেলনের নোটিশ

ঢাকা বিভাগীয় রাজস্ব সম্মেলন এর কার্যপত্র

 

আলোচ্যসূচি নং-১        বিগত সভার কার্যবিবরণী অনুমোদনঃ

            বিগত সভার কার্যবিবরণী অনুমোদন করা যেতে পারেz

 

আলোচ্যসূচি নং-২ঃ বিগত (২৩ আগষ্ট ২০১৫ তারিখে অনুষ্ঠিত) সভার সিদ্ধা¿¹ বাস¹বায়ন অগ্রগতিঃ

 

বিগত সভার সিদ্ধা¿¹ বাস¹বায়ন অগ্রগতি প্রতিবেদন সকল জেলা হতে পাওয়া গেছেz প্রাপ্ত প্রতিবেদনের সার-সংক্ষেপ নিম্নরূপঃ

 

এ্রঃ নং

আলোচনার বিষয়

সিদ্ধা¿¹

বাস¹বায়ন অগ্রগতি

বিগত সভার সিদ্ধা¿¹ বাস্তবায়নz

রাজস্ব স­ম্মেল­নের সিদ্ধা¿¹ উপ­­জলা/তৃণমূল পর্যা­য়ে বাস¹বিক অর্থের্ই বাস¹বায়ন হ­চ্ছে কিনা তা খতি­­য় দে­খে প্রয়োজনীয় ব্যবসহা গ্রহণ কর­­ত হ­বেz এ সা­থে সরকারি কার্য নিষ্পত্তির মান উন্নয়নের জন্যও স­চেষ্ট থাক­তে হ­বেz

এ সিদ্ধা­¿¿¹র আ­লো­কে কার্যত্র্রম গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট­দের­কে নি­র্দেশ প্রদান করা  হ­য়ে­ছেz

 

ভূমি উন্নয়ন কর

আগষ্ট/১৫ পর্য¿¹ তথ্য পৃঃ নং-৫-৬)z

(ক) সেপ্টেম্বর/১৫ মাসের মধ্যে ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরের ভূমি উন্নয়ন করের দাবি নির্ধারণের কাজ সম্পন্ন করে আদায় কার্যত্র্রম জোরদার করতে হবেz

 

 

 

 

(খ) সংসহার ভূমি উন্নয়ন কর আদা­য়ের ল­ক্ষ্যে সহানীয় অফিস প্রধা­নের নিকট বকেয়া দাবিসহ পত্র প্রেরণ এবং ব্যক্তিগত যোগা­যোগ অব্যাহত রাখ­­ত হ­বেz

((ক) জেলা প্রশাসকগণ ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরের ভূমি উন্নয়ন করের আদায় কার্যত্র্রম জোরদার করার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) এবং ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তাগণকে  নির্দেশ প্রদান করেছেনz

 

(খ) এ সিদ্ধা­¿¿¹র আ­লো­কে স্থানীয় অফিস প্রধানের নিকট বকেয়া দাবীসহ পত্র প্রেরণ এবং ব্যক্তিগত যোগাযোগ করার জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) গণকে নির্দেশ  প্রদান করা    হ­য়ে­­ছ

কৃষি ও অকৃষি খাসজমি বন্দোবস¹

(আগষ্ট/১৫ পর্য¿¹ তথ্য পৃঃ নং-৭-৮)z

((ক) ক্রাশ প্রোগ্রামের মাধ্যমে প্রকৃত ভূমিহীনদের মাঝে বিধি মোতাবেক খাসজমি বন্দোবস¹ দিতে হবেz দুঃসহ মুক্তিযোদ্ধাদেরকে খাসজমি বরাদ্দে অগ্রাধিকার দিতে হবেz

 

 

 

 

(খ) সরকারি জমি যেন কোন অবসহায় বেহাত না হয় সে বিষয়ে যথাযথ সতর্কতা অবলম্বনের ব্যবস্থা নিতে হবে।

 

 

 

 

 

(গ) অকৃষি খাসজমি বরাদ্দের ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য সেবামূলক প্রতিষ্ঠানকে অগ্রাধিকার দিতে হবেz

 

(ক) ব­ন্দোবস¹­যোগ্য অকৃষি খাসজমি প্রকৃত    ভূমিহীন­­দর মা­ঝে ব­ন্দোবস¹ দি­তে এবং দুঃসহ মুক্তিযোদ্ধাদেরকে খাসজমি বরাদ্দে অগ্রাধিকার দিতে জেলা প্রশাসকগণ সংশ্লিষ্ট সকলকে নি­­র্দশ প্রদান করেছেন।

 

 

(খ) সরকারি জমি যেন কো­ন অবসহায় বেহাত না হয় সেদি­কে খেয়াল রাখার জন্য ­জেলা রাজস্ব সভায় নির্দেশনা প্রদান করা হয়ে­­ছ এবং বিষয়টি পর্য­বেক্ষণ করা হ­­চ্ছ

 

(গ) অকৃষি খাসজমি বরাদ্দের ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য সেবামূলক প্রতিষ্ঠানকে অগ্রাধিকার দিতে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ দেয়া হয়েছেz

বর্তমান সরকারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ভূমিহীন পরিবারকে কৃষি খাসজমি বন্দোবস¹ প্রদান  (পরিশিষ্ট-"খ')z

 

(ক) ভূমিহীন পরিবারকে কৃষি খাসজমি বন্দোবস¹ দেয়ার কার্যত্র্রম গ্রহণ অব্যাহত রাখতে হবেz

 

 

 

 

(খ) যেসব উপজেলায় বিগত অর্থ বছরে লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি সেসব উপজেলায় এ বছরে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কৃষি খাসজমি বন্দোবস¹ দিতে হবেz

 

 

(গ) প্রতিটি উপজেলার খাসজমিতে অ~~বধ দখলদারদের তালিকা প্রসºত করে বিধি মোতাবেক উচ্ছেদ কার্যত্র্রম গ্রহণ করতে হবেz

 

(ক) ভূমিহীন পরিবার­কে কৃষি খাসজমি বন্দোবস¹ দেয়ার কার্যত্র্রম গ্রহণ অব্যাহত রাখতে সংশ্লিষ্ট­দের নির্দেশনা প্রদান করা  হ­­য়­ছেz

 

 

(খ) এ সিদ্ধা­¿¿¹র আ­লো­কে কার্যত্র্রম গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্ট­দের নি­র্দেশনা প্রদান করা  হ­য়ে­­ছz

 

(গ) সিদ্ধা¿¹ মোতা­বেক ব্যবসহা গ্রহণ করা হচ্ছেz

খাসজমি সংএ্রা¿¹ দেওয়ানী মামলা এবং পরিত্যক্ত, অর্পিত ও অন্যান্য সম্পত্তি সংত্র্রা¿¹ দেওয়ানী  মামলা (আগষ্ট/১৫ পর্য¿¹ তথ্য পৃঃ নং-৯-১০)z

(ক) রাষ্ট্রের বিপক্ষে রায় হওয়া মামলাসমূহের ক্ষেত্রে âুত আপীল দায়ের করাসহ মামলা পরিচালনার ক্ষেত্রে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের নিমিত্ত জেলা প্রশাসকগণ প্রয়োজনীয় ব্যবসহা নিবেনz

 

(খ) পরিত্যক্ত, অর্পিত ও অন্যান্য সম্পত্তি সংত্র্রা¿¹ দীর্ঘদিন যাবৎ পেন্ডিং মামলাসমূহ âুত নিষ্পত্তির জন্য জেলা প্রশাসকগণ বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবসহা গ্রহণ করবেনz

 

 

(গ) অর্পিত সম্পত্তি নিয়ে সৃষ্ট মামলায় সরকার পক্ষে যথাযথ প্রতিদ্বন্দিÄতা করার জন্য জেলা প্রশাসকগণ সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিবেন এবং নির্দেশনা মোতাবেক কার্যত্র্রম গৃহীত হচ্ছে কিনা সে বিষয়ে নিবিড় তদারকি নিশ্চিত করবেনz 

 

(ক) এ সিদ্ধা­¿¿¹র আ­লো­কে কার্যত্র্রম গ্রহণ করা  হ­­চ্ছz

 

 

(খ) দীর্ঘদিন যাবৎ পেন্ডিং মামলাসমূহ âুত নিষ্পত্তির জন্য বিধি মোতা­বেক প্রয়োজনীয় ব্যবসহা গ্রহণ কর­তে সংশ্লিষ্টদের­ক নি­র্দেশ প্রদান করেছেনz

 

 

(গ) অর্পিত সম্পত্তি নি­য়ে সৃষ্ট মামলায় সরকার প­ক্ষে যথাযথ প্রতিদ্বন্দিÄতা করা হ­চ্ছে এবং বিষয়টি তদারকি করা হ­­চ্ছz

 

 

অর্পিত সম্পত্তি ব্যবসহাপনা

(আগষ্ট/১৫ পর্য¿¹ তথ্য পৃঃ নং-১১-১২)z

(ক) অর্পিত সম্পত্তির লীজ মানির দাবি দ্রম্নত নির্ধারণপূর্বক লীজ কেসগুলো নবায়নের কার্যক্রম জোরদার করতে হবে।

 

 

 

(খ) অর্পিত সম্পত্তির নিয়ে সৃষ্ট মামলায় সরকার পÿÿ যথাযথ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য জেলা প্রশাসকগণ সংশিস্নষ্টদের প্রয়োজনীয়নির্দেশনা দিবেন এবং  নির্দেশনা মোতাবেক কার্যক্রম গৃহীত হচ্ছে কিনা সে বিষয়ে নিবিড় তদারকি নিশ্চিত করবেন।

 

  (গ) পরবর্তী সভা হতে উপরোক্ত ‘‘ছক’’ মোতাবেক অর্পিত সম্পত্তির লীজ কেস নবায়ন সংক্রামত্ম তথ্য উপস্থাপনের জন্য অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) মহোদয়কে অনুরোধ করা হলো।

­অর্পিত সম্পত্তির লীজ কেসগুলো âুত নবায়ন করতঃ লীজমানি আদায়ের কার্যত্র্রম আরো জোরদার করতে সংশ্লিষ্ট­দের­কে    নি­­র্দশ প্রদান করা হয়ে­ছেz

 

(খ) নির্দেশনা মোতাবেক কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

(গ) নির্দেশনা মোতাবেক কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে।

 

পরিত্যও্র সম্পত্তি ব্যবসহাপনা

(আগষ্ট/১৫ পর্য¿¹ তথ্য পৃঃ নং-১৩)z

(ক) অতিরিও্র কমিশনার (এপিএমবি), ঢাকা ও সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকগণ পরিত্যক্ত সম্পত্তিসমূহের সুষ্ঠু ব্যবসহাপনার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবেনz এ সম্পত্তিসমূহ কোনভাবেই যেন বেহাত হতে না পারে সে জন্য যথাযথ ব্যবসহা গ্রহণ করতে হবেz

(ক) এপিএমবি, ঢাকা ও সংশ্লিষ্ট জেলা হ­­ত জানানো হ­­য়­ছে যে, পরিত্যও্র সম্পত্তি-সমূহের সুষ্ঠু ব্যবসহাপনার ল­ক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদ­ক্ষেপ গ্রহণ কর­তে এবং এ সম্পত্তিসমূহ কোনভা­বেই ­যেন বেহাত হতে না পা­­র সে জন্য যথাযথ ব্যবসহা গ্রহণ কর­তে সংশ্লিষ্ট সবাই­কে নি­র্দেশ দেয়া হ­য়ে­ছেz

 

 

(খ) সিদ্ধামত্ম মোতাবেক তথ্য প্রেরণ করা হয়েছে।

 

 

পেন্ডিং এল,এ, কেস (আগষ্ট/১৫ পর্য¿¹ তথ্য পৃঃ নং-১৪-১৫)z

(ক) জেলা প্রশাসকগণ পেন্ডিং এল,এ কেসসমূহের নিষ্পত্তির হার বাড়ানোর জন্য সঠিক কর্ম-পরিকল্পনা গ্রহণ করতঃ কার্যকরী ব্যবসহা গ্রহণ করবেনz

                   

 

(খ) জমি অধিগ্রহণ এবং ক্ষতিপূরণের অর্থ বিতরণে যাতে কোন অনিয়ম বা দূর্নীতি না হয় এবং জমির মালিকগণ যাতে কোন ভোগা¿¿¹র শিকার না হন- এ লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকগণ প্রয়োজনীয় সতর্কতামূলক ব্যবসহা গ্রহণ করবেনz

 

 

(গ) ১৯৮২ সনের অধ্যাদেশের অধীন সকল লীজ কেসের বিষয়ে দ্রম্নত গেজেটে প্রকাশপূর্বক নিষ্পত্তির ব্যবস্থা গ্রহণের লÿÿ্য জেলা প্রশাসকগণ প্রয়োজনীয় ব্যবসহা গ্রহণ করবেনz

 

(ঘ) ১৯৪৮ সনের জরুরী হুকুম দখল আইন এর অধীনে এল,এ, কেসসমূহের চূড়া¿¹ প্রাক্কলন প্রসºত করার পর প্রত্যাশী সংসহা সম্পূর্ণ অর্থ প্রদান করে থাকলে বা অধিগ্রহণকৃত জমি প্রত্যাশী সংসহার অনুকূলে হস্তা¿¹র করে থাকলে এবং প্রত্যাশী সংসহা বর্তমানে ঐ জমির দখলে থাকলে এবং এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র থাকা সাপেক্ষে কেসের গুরুত্ব বিবেচনা করে গেজেট প্রকাশের জন্য জেলা প্রশাসকগণ বিভাগীয় কমিশনারের বরাবর প্রসত্মাব প্রেরণ করবেনz

 

(ক) পেন্ডিং এল,এ, কেসসমূ­হের নিষ্পত্তির হার বাড়া­নোর জন্য সঠিক কর্ম-পরিকল্পনা গ্রহণ করতঃ কার্যকরী ব্যবসহা গ্রহণ করা হ­চ্ছেz

 

 

 

(খ) এ সিদ্ধা­¿¿¹র আ­­লা­কে কার্যত্র্রম গ্রহণ করা  হ­­চ্ছz

 

 

 

 

 

(গ) সিদ্ধা¿¹ম­তে কার্যত্র্রম গ্রহণ করা হচ্ছেz

 

 

 

 

(ঘ) এ সিদ্ধা¿¹ অনুসর­ণের জন্য সংশ্লিষ্ট­দের­কে   নি­­র্দশ ­দেয়া হ­­য়­ছেz

 

 

 

 

 

 

নামজারি কেস (আগষ্ট/১৫ পর্য¿¹ তথ্য পৃঃ নং-১৫-১৬)z

(ক) নামজারি কেসসমূহ সরকারের সর্বশেষ নির্দেশনা অনুযায়ী নিষ্পত্তি করার জন্য জেলা প্রশাসকগণ সহকারী কমিশনার(ভূমি)গণকে পুনরায় নির্দেশনা দিবেন এবং নির্দেশনা মোতাবেক কার্যত্র্রম গ্রহণ করা হচ্ছে কিনা- এ বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করবেনz  

 

 

 

(খ) সরকারি জমি যেন কোন অবসহাতেই ব্যক্তিমালিকানায় নামজারি না হতে পারে এ লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকগণ সংশ্লিষ্টদেরকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিবেনz এর ব্যত্যয় পরিলক্ষিত হলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে âুততার সাথে বিধি মোতাবেক বিভাগীয় ব্যবসহা গ্রহণ করতে হবেz

 

 

(গ) সহকারী কমিশনার(ভূমি)গণ নামজারি প্রস¹াবের ন্যূনতম ৫% ক্ষেত্রে সরেজমিন গিয়ে মালিকানা ও দখল সংত্র্রা¿¹ বিষয় পরীক্ষা করে দেখবেনz এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকগণ সহকারী কমিশনার(ভূমি)গণকে প্রযোজনীয় নির্দেশনা দিবেনz

 

(ক) নামজারি কেসসমূহ সরকারের সর্ব­শেষ নির্দেশনা অনুযায়ী নিষ্পত্তি করার জন্য সহকারী কমিশনার(ভূমি)গণ­কে পুনরায় নি­­র্দশ প্রদান করা হ­য়ে­­ছ এবং বিষয়টি   পর্য­বেক্ষণ করা   হ­চ্ছেz

 

 

 

(খ) এ সিদ্ধা¿¹ম­তে কার্যত্র্রম গ্রহণ কর­তে সংশ্লিষ্ট­দর­কে নি­র্দেশনা দেয়া হ­য়ে­ছেz

 

(গ) এ সিদ্ধা¿¹টি যথাযথভা­বে অনুসরণ কর­তে সহকারী কমিশনার(ভূমি)-গণকে নি­র্দেশ প্রদান করা হ­য়ে­ছেz

 

 

(ঘ)  নির্দেশনা মোতাবেক কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে।

১০

জলমহাল ইজারা (আগষ্ট/১৫ পর্য¿¹ তথ্য পৃঃ নং-১৬)।

(ক) সরকারি জলমহাল ব্যবসহাপনা নীতি, ২০০৯ অনুযায়ী জলমহালসমূহ বাংলা ১৪২২ সনের জন্য ইজারা প্রদানের প্রয়োজনীয় কার্যত্র্রম গ্রহণ করতে হবেz জনস্বার্থ বিবেচনায় ইজারা হওয়ার পূর্ব পর্য¿¹ খাস কালেকশনের জন্য বিধি মোতাবেক ব্যবসহা গ্রহণ করতে হবেz

 

 

(খ) যেসব জলমহাল প্রাকৃতিক কারণে ভরাট হয়ে গেছে সেগুলো জলমহালের তালিকা থেকে বাদ দেয়ার জন্য জেলা প্রশাসকগণ বিধি মোতাবেক ব্যবসহা গ্রহণ করবেনz তবে জলমহালের তালিকা থেকে বাদ দেয়ার পরও এগুলোতে সরকারি স্বত্ব ও দখল যাতে বজায় থাকে এ লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবসহা গ্রহণ করতে হবেz

 

(গ) জেলা প্রশাসকগণ জলমহাল সংত্র্রা¿¹ বিষয়ে দায়েরকৃত মামলাসমূহে রাষ্ট্রপক্ষে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করবেনz জলমহাল ব্যবসহাপনার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট আইন, বিধি-বিধান ও নীতিমালা পুঙ্খানুপুঙ্খরূপে অনুসরণ করতে হবে- যাতে স্বার্থান্বেষী মহল জলমহাল নিয়ে অহেতুক মামলা-মোকদ্দমা সৃজন করতে না পারে

(ক) সরকারি জলমহাল ব্যবসহাপনা নীতি, ২০০৯ অনুযায়ী জলমহালসমূহ বাংলা ১৪২২ স­নের জন্য ইজারা প্রদা­নের কার্যত্র্রম চল­­ছz ইজারা হওয়ার পূর্ব পর্য¿¹ খাস কা­লেকশ­নের জন্য বিধি মোতা­বেক ব্যবসহা গ্রহণ কর­তে সংশ্লিষ্টদের­ক নি­র্দেশ দেয়া হ­­য়­ছেz